আমতলীতে দুই পক্ষ মুখোমুখী ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২২ মার্চ, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক:: আমতলী উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন পুর্ণবিবেচনার দাবীতে উপজেলা তৃণমুল আওয়ামী লীগ মানববন্ধনের আয়োজন করে। ওই মানববন্ধন পন্ড করতে চাওড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আমতলী উপজেলা পরিষদের সামনে এসে মিছিল দেয়। একই স্থানে দু’পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নেয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। উপজেলা নিার্বহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান ও ওসি শাহ আলম হাওলাদারের হস্তক্ষেপে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। ঘটনা ঘটেছে বেলা ১১ টার দিকে। এ ঘটনায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ভ্রাম্যমান আদালত ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
জানাগেছে, আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী, কুকুয়া, আঠারোগাছিয়া, হলদিয়া,চাওড়া ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা এইচএম মনিরুল ইসলাম, বোরহান উদ্দিন আহম্মেদ মাসুম তালুকদার, হারুন অর রশিদ হাওলাদার, শহীদুল ইসলাম মৃধা, আখতারুজ্জামান বাদল খান ও সোহেলী পারভীন মালাকে মনোনয়ন দেয়। মনোনয়ন পাওয়া ছয় প্রার্থীকে বিএনপি, জাপা, লুটেরা, হাইব্রীড ও দূর্নীতিবাজদের মনোনয়ন দেয়ার প্রতিবাদে এবং মনোনয়ন পূর্ণ বিবেচনার দাবীতে উপজেলা তৃণমুল আওয়ামী লীগ সোমবার মানববন্ধনের আয়োজন করে। এ মানববন্ধন পন্ড করতে সোমবার সকাল ১০ টায় চাওড়া ইউনিয়ন পরিষদ নৌকার প্রার্থী আখতারুজ্জামন বাদল খান শতাধিক নেতা-কর্মী নিয়ে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে আলতাফ হাওলাদার ও অ্যাডভোকেট মহসিন হাওলাদারের বিরুদ্ধে বিএনপি জামায়াত আখ্যা দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ব্যঙ্গাত্মক মিছিল দেয়। এদিকে উপজেলা তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলমগীর করিব মোল্লা, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি জিএম ওসমানী হাসান, সেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন খান পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর জিএম মুছা, পৌর যুবলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আরিফ-উল হাসান আরিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিরাজ হোসাইন, চাওড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাবেক সভাপতি আলহাফ হাওলাদারের নেতৃত্বে শতাধীক নেতা কর্মীরা উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন করে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় উপজেলা পরিষদ এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ভ্রাম্যমান আদালত ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান ও ওসি শাহ আলম হাওলদারের নেতৃত্বে উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক চাওড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী মোঃ আলমগীর কবির মোল্লা বলেন, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও দুর্ণীতিবাজদের মনোনয়ন বাতিল করে পুনরায় ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার কাছে মানববন্ধনের মাধ্যমে দাবী জানাই। ওই মানববন্ধন পন্ড করতে চাওড়া ইউনিয়ন পরিষদ বর্তমান চেয়ারম্যান নৌকা প্রার্থী আখতারুজ্জামান বাদল খান তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে আমাদের উপর হামলার চেষ্টা চালায়। পুলিশের হস্তক্ষেপে আমরা রক্ষা পেয়েছি। তিনি আরো বলেন, প্রধানমমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের যৌক্তিক দাবী মেনে দুর্ণীতিবাদ লুটেরাদের মনোনয়ন বাতিল করবেন বলে আশা রাখি।
আমতলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ( ভারপ্রাপ্ত) অ্যাডভোকেট এমএ কাদের মিয়া বলেন, আমি আদালতে আছি। বিষয়টি আমার জানা নেই।
আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন বঞ্চিত আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা নৌকার মনোনয়ন বাতিলের দাবীতে মানববন্ধনের আয়োজন করে। চাওড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনীত প্রার্থী আখতারুজ্জামান বাদল খান তার নেতাকর্মী নিয়ে ওই মানববন্ধনকে প্রতিহত করতে আসে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থতে গিয়ে শান্তিপুর্ণভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনেছি।
আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, মানববন্ধনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে একটি উত্তেজনাকর ঘটনা ঘটেছে। উভয় পক্ষকে শান্ত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়।