ঋনক্ষেলাপী হয়েও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় চেয়ারম্যান


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২১ মার্চ, ২০২১

অলোক, চিতলমারী, বাগেরহাট::: জয় গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রাক্তন উপজেলা চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান শামীমের সহ ধর্মনী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান (৩বার) সামিয়া রহমান বিউটি একজন ঋন খেলাপী এমন অভিযোগ করেন ৭নংসন্তোষপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। ঋণখেলাপী থাকার পরে কি ভাবে তার মনোনয়ন বৈধ হয় তার পিছনে কি ব্যাপার আছে তা সবার মুখে মুখে।বিউটির বিরুদ্ধে সংবাদ সন্মেলন করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি,সহসভাপতি ও সাধারন সম্পাদক।শনিবার রাত ৮.৩০মিনিটে অনুষ্ঠিত সংবাদ সন্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সন্তোষপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রসুল মাঝী,সহ সভাপতি মল্লিক রেজাউল করিম। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সম্পাদক নরেন্দ্রনাথ শিকদার। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন খুলনার সোনালী ব্যাংক থেকে জঢ জুট মিলসের চেয়ারম্যান থেকে ঋন নিয়ে পরিশোধ না করায় ঋন খেলাপী হয়।১৮ই মার্চ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক সুপর্না রানী মোহন্ত স্বাক্ষরীত পত্র সংশ্লিষ্ট নির্বাচন অফিসার,ইউনিয়ন রির্টানিং অফিসার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃআমিনুল ইসলামকে অবহিত করা হয়।সূত্র নং৫(১)/২০২১-১২০০।মনোনয়ন পত্রবৈধ ঘোষনা নির্বাচনী আচরণ বিধি ও নিয়মনীতির বিরুদ্ধে।এ খবর শোনা মাত্র ইউনিয়নবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে।
সামিয়া রহমান বিউটি বলেন মার্চের ২ তারিখ আমি সোনালী ব্যাংক খুলনার কর্পোরেট শাখার লোন পরিশোধ করেছি।শিক্ষাকর্মকর্তা বলেন১৯ মার্চ বেলা ৩টার মধ্যে যাচাই বাছাই সম্পন্ন করতে বলা হয়।কিন্তু৪.২০টার সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠি আসে।আমি নির্বাচন কর্মকর্তাকে সিদ্ধান্ত নিতে অবহিত করি।তবে নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল মজিদ বলেন কারো মনোনয়ন পত্র বৈধ বা বাতিল সংশ্লিষ্ট রির্টানিং কর্মকর্তার।
বিউটি আক্তারের সমর্থকরা বলেন চেয়ারম্যান তার প্রয়োজনীয কাগজ পত্র সব বিভাগেজমা দিয়েছেন।