জঙ্গী সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর ০৪ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১ মার্চ, ২০২১

অনলাইন ডেস্কঃ জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের প্রত্যয় নিয়ে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দৃঢ় অবস্থানে রয়েছে এলিট ফোর্স র‌্যাব। র‌্যাবের তৎপরতার কারণে বিভিন্ন সময়ে নাশকতা সৃষ্টিকারী জঙ্গী সংগঠন সমূহের শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থরের নেতা- কর্মীদেরকে গুরুত্বপূর্ণ অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। তবে র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর গোয়েন্দা নজরদারী ও অভিযানের ফলে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠনগুলোর নেতা কর্মীরা পুনরায় সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা চালিয়ে বার বার ব্যর্থ হয়েছে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে ধৃত হয়েছে।

 

জঙ্গী দমনে বাংলাদেশের সফলতা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বেশ প্রশংসিত। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১২ ফেব্রæয়ারি ২০২১ ইং তারিখে র‌্যাব-৪ কর্তৃক গ্রেফতারকৃত “আনসার আল-ইসলাম” এর ০৪ সদস্য হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ২৮ ফেব্রয়ারি ২০২১ ইং তারিখ ১৩.৩০ ঘটিকা হতে ২২.৩৫ ঘটিকা পর্যন্ত র‌্যাব-৪ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল সাভার, ভাষানটেক, তেজগাঁও ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন “আনসার আল-ইসলাম” এর নিম্নোক্ত ০৪ জন সক্রিয় সদস্য’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়ঃ

(১) মোঃ কলিম উল্ল্যাহ (৩৭), জেলা- চট্টগ্রাম।
(২) মোঃ তাসকিন হাসান আকন্দ @ আনন্দ (১৯), জেলা- শেরপুর।
(৩) মোঃ জাহাঙ্গীর মিয়া @ জহিরুল ইসলাম @ মাসুদ (২৩), জেলা- নরসিংদী।
(৪) মোঃ আলী রাসেল (৩৪), জেলা- চট্টগ্রাম।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন ‘‘আনসার আল ইসলাম’’ এর সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করে এবং তাদের নিকট থেকে ‘‘আনসার আল ইসলাম’’ এর বিভিন্ন ধরনের ১১ টি উগ্রবাদী বই, ০৪ টি ট্রাভেল ব্যাগ, জঙ্গি কার্যক্রমে ব্যবহৃত ০৫ টি মোবাইল এবং ১২৬ টি জঙ্গিবাদী কথোকথনের প্রমাণাদি জব্দ করা হয়।
মোঃ কলিম উল্ল্যাহ (৩৭)’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে উচ্চা শিক্ষা সম্পন্ন করে একটি বেসরকারী কোম্পানীতে চাকুরী করতো এবং বর্তমানে সে অনলাইনে/অফলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করে। “আনসার আল ইসলাম” এর সক্রিয় সদস্য হিসেবে সে “আনসার আল ইসলাম” এর সদস্যদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপনের পাশাপাশি অন্যদের উদ্ধুদ্ধকরণের জন্যে অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি, ভিডিও ও লিফলেট প্রচার করে আসছিলো এবং নিয়মিত চাঁদা সংগ্রহ করে আসছিলো।

 

মোঃ তাসকিন হাসান আকন্দ @ আনন্দ (১৯)’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে একটি বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি নারায়নগঞ্জে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করতো। সে বেশ কিছুদিন যাবৎ “আনসার আল ইসলাম” এর সাথে জড়িত থেকে অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি প্রচার করে আসছিলো। মোঃ জাহাঙ্গীর মিয়া @ জহিরুল ইসলাম @ মাসুদ (২৩)’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে যাত্রাবাড়ীতে একটি মাদ্রাসায় অধ্যায়নরত ছিল। জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায় উক্ত গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি বেশ কিছুদিন যাবত “আনসার আল ইসলাম” এর সাথে জড়িত থেকে অনলাইনে উগ্রবাদী জিহাদের ভিডিও আপলোড করে সাধারণ জনগণকে উগ্রবাদী মতবাদ সর্ম্পকে উদ্ধুদ্ধকরণের চেষ্টা করে আসছিলো।

 

মোঃ আলী রাসেল (৩৪)’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে কারওয়ান বাজারে একটি মাছের আড়তে কাজ করতো এবং “আনসার আল ইসলাম” এর সাথে জড়িত থেকে অন্যান্যদের সাথে গোপন বৈঠকের পাশাপাশি নতুন সদস্য সংগ্রহ চেষ্টা করে আসছিলো। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অন্যান্য সহোচরদের গ্রেফতারে র‌্যাব এর গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে।