প্রবাসের খবর

দেশের বাইরে থেকেও কমেনি দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা।

মোঃ জহিরুল ইসলাম রাতুল,খুলনা ব্যুরো:::: একজন মানুষ যিনি দেশের বাইরে থেকেও কমেনি দেশ এবং দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা। দূরে থেকেও প্রতিনিয়তই ভালোবেসে যাচ্ছেন নিজের দেশ এবং মাটি ও মানুষকে। তিনি লন্ডনে বসবাসরত একজন ব্রিটিশ বাংলাদেশী। তার নাম সোহেল আহমেদ। তিনি ১৩ ই জুন সিলেটের হবিগঞ্জ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। জন্ম সিলেটের হবিগঞ্জ জেলায় হলেও পড়ালেখা এবং তার শৈশব কেটেছে পরিবার এর সাথে ঢাকায়। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শেষ করেন মতিঝিল মডেল হাই স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পরে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে “সোসাল ওয়েলফেয়ার “এর উপর অনার্স এবং মাস্টার্স শেষ করেন।
পেশায় তিনি একজন ফ্রিল্যান্সার কনসালটেন্ট তবে সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও রয়েছে এই মানুষটির এক অসামান্য অবদান। তার সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এ পথম পদার্পণ ১৯৮৯ সালে বুলবুল ললিতকলা একাডেমি ঢাকা তে। তিনি একাধারে একজন নাট্য ও নৃত্য শিল্পী এবং লন্ডনের মেইনস্ট্রিম এর একজন প্রথম সারির মডেল তারকা। লন্ডনেও তিনি ধরে রেখেছেন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড।
১৯৯৯ সালে তিনি পাড়ি জমান ইউনাইটেড কিংডম এ।
তিনি একজন সামাজিক কর্মীও । দেশের বাইরে থেকেও প্রতিনিয়তই খুঁজে বের করেন দেশের অসহায় মানুষকে বিভিন্ন মাধ্যমে সহায়তা করে স্বাবলম্বী করে তোলার চেষ্টা করেন তিনি। তিনি মোট ৪টি প্রতিবন্ধী সংস্থার উপদেষ্টা মণ্ডলী সদস্য এবং প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক,এর মধ্যে সবথেকে বড় দুটি সংস্থা হলো শাপলাকুড়ি প্রতিবন্ধী সংস্থা সিলেট এবং পদ্মাকুঁড়ী প্রতিবন্ধী সংস্থা, খুলনার মাধ্যমে সাহায্য পৌছে দেন অসহায় সুবিধাবঞ্চিত প্রতিবন্ধীদের মাঝে। পদ্মকুঁড়ি প্রতিবন্ধী সংস্থা সহ আরো কয়েকটি সামাজিক সংগঠন এর সাথে কাজ করেন তিনি।
অন্যান্য বছর গুলো তে বিভিন্ন আয়োজন এর মধ্য দিয়ে পালিত হতো সোহেল আহমেদ এর জন্মদিন কিন্তু গত দুই বছর যাবত কোভিড ১৯ এর প্রভাবে যখন সমগ্র বিশ্ব থমকে গিয়েছে তখনও তিনি দেশের অসহায়, ছিন্নমূল ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে উপহার হিসেবে তার জন্মদিনের খরচ এর সমপরিমাণ অর্থ পাঠিয়েছেন এবং দেশে তার জন্মদিন উপলক্ষে অসহায় ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে সেই অর্থ বিতরন করেছে তার নিজের সংস্থাগুলি। এই বছরও তিনি তার জন্মদিন উপলক্ষে তার পক্ষ থেকে কিছু অর্থ দেশের অসহায়, ছিন্নমূল ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে পাঠিয়ে দিয়েছেন এবং তিনি সকলের দোয়া প্রার্থী যেন ভবিষ্যতেও তিনি এভাবেই ছিন্নমূল মানুষের পাশে থাকতে পারেন।
তার প্রতি দেশের সকল মানুষে এবং সকল সংস্থা সহ সোহেল আহমেদ- কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button