পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নেশার টাকার জন্য মুক্তিযোদ্ধা পিতা-মাতাকে কুপিয়ে আহত করেছে ছেলে


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২৮ মার্চ, ২০২১

পিরোজপুর প্রতিনিধি::::পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নেশার টাকার জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মুক্তিযোদ্ধা ও তার স্ত্রী কে কুপিয়ে আহত করেছে ছেলে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকবীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর হাওলাদার (৬৪) ও মা সহায়ক ইউপি সদস্য লুৎফা বেগমকে (৫০) এলোপাথারি ভাবে কুপিয়ে জখম করেছে নেশাগ্রস্থ ছেলে আরিফুর রহমান অনি (২৫)। আজ রবিবার বিকালে উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত দুজনকে তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেছে। তবে এর মধ্যে মা লুৎফা বেগমের আবস্থা কিছুটা গুরুতর। তার মাথায় ধারালো অস্ত্রের জখম রয়েছে বলে জানান ইন্দুরকানী থানার ওসি মো: হুমায়ুন কবির।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অনি দীর্ঘদিন যাবত নেশায় আসক্ত। এজন্য তার পিতা-মাতাকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন কওে আসছিলে। এ কারনে তার পিতা মুক্তিযোদ্ধা মো: হাবিবুর রহমান কয়েকবার স্থানীয় থানা পুলিশের হাতে তুলে দেন ছেলেকে। আজ অনি পিতা মাতাকে নেশা করার জন্য টাকার চাপ দিলে তারা তাকে টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে তার মা ও বাবাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। তাদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে আহত দুজনকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

পিরোজপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. তারেক আজিজুল্লাহ জানান, বিকেলে লুৎফা বেগমকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে আনা হলে তার মাথায় আঘাতের ফলে রক্তক্ষরণ হচ্ছিলো। দ্রæত তার মাথায় সেলাই দিয়ে তাকে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো: হুমায়ুন কবির জানান, ঘটনার খবর পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহত দুজনকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে নেশাগ্রস্থ ঐ ছেলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।