প্রেমের টানে বাংলাদেশী তরুণী ভারতে, পতাকা বৈঠক শেষে ফেরত


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১৯ মার্চ, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক:::জামালপুরের বকশীগঞ্জে প্রেমের টানে ভারতে যাওয়া ৯ম শ্রেনী পড়-য়া তরুনীকে ফেরত দিল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।
গত বৃহস্পতিবার(১৮মার্চ) রাত ৮ টার দিকে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর পতাকা বৈঠক শেষে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে পুলিশ পারিবারের কাছে ফেরত দেয় তরুনীকে।
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জামালপুর বাংলাদেশ বর্ডারগার্ড(বিজিবি) ৩৫,ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং কর্মকর্তা (সিও) লে.কর্ণেল মুনতাসির বলেন, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পাররামপুর ইউনিয়নের উঃ রহিমপুর গ্রামের মিষ্টার আলীর কন্যা মেরিনা বেগম ভারতীয় সীমান্তবর্তী গ্রামের আক্তার হোসেন নামের এক ছেলের সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। ওইদিন বিকালে প্রেমের টানে বকশীগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারতে চলে যায় ওই তরুনী। পরে আক্তার হোসেনকে খুজতে থাকে। এ সময় সন্দেহ জনক আচারণে বিএসএফ আটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ওই তরুণী জানান তার বাড়ী বাংলাদেশে। পরে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী বাংলাদেশ বর্ডারগার্ড (বিজিবি) এর সাথে যোগাযোগর করে বকশীগঞ্জ কামালপুর সীমান্তে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দেয়।
বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) এর পক্ষে কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার আজমল হোসেন এবং ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ এর পক্ষে নেতৃত্বে দেন এসকে বিশল।
ভারতীয় বিএসএফদের কোম্পানি কমান্ডার ইন্সপেক্টর এস.কে বিশল বাংলাদেশ বিজিপি ধানুয়া কামালপুর বিওপির সুবেদার মোঃ আজমল হোসেনের নিকট মেরিনাকে হস্তান্তর করেছেন।
পরে সুবেদার আজমল হোসেন কিশোরী মেরিনাকে বকশিগঞ্জ থানা পুলিশের এস.আই মোঃ মুন্তাজ আলীর হেফাজতে দিয়েছেন। এ সময় ধানুয়া কামালপুর ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম স¤্রাট এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।