ববি শিক্ষার্থীদের মেসে ফের হামলা


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ৫ মার্চ, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক::বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থীদের ওপর পরিবহন শ্রমিকদের হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই পুনরায় হামলা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। তবে এবার দুর্বৃত্ত হিসেবে সহপাঠীর নাম উল্লেখ করেছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী। গত বুধবার গভীর রাতে বরিশাল নগরীর চৌমাথা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগে গত ১৭ই ফেব্রুয়ারি নগরীর রুপাতলী এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মেসে গিয়ে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা।

ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, কিছুদিন পূর্বে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের একটি ছবিকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মোঃ শাহবাজ মিঞা শোভন তার ছবি সংবলিত মিছিলের একটি চিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করলে সেটি তার সহপাঠী অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার আহমেদ মিলান স্ক্রিনশট দিয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করেন। তার পোস্টের প্রেক্ষিতে অনেকেই বাজে মন্তব্য করে বলে অভিযোগ করেন শিক্ষার্থী শাহাবাজ মিঞা শোভন।

পোস্টের প্রতিশোধস্বরূপ গত ৩রা মার্চ, বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় কতিপয় কিশোরকে দিয়ে শাহারিয়ার মিলান’কে শায়েস্তা করার উদ্দেশ্যে তার আবাসিক মেসে পাঠায় নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহপাঠী শাহাবাজ মিঞা শোভন।

বহিরাগত কিশোরেরা মেসের বাইরে ডাকলে বিপদ আঁচ করতে পেরে শাহরিয়ার মিলান তার কাছাকাছি অবস্থান করা বিশ্ববিদ্যালয়ের বড় ভাইদের ফোন দেয়। তারা পুলিশ সহ এসে ঐ সকল কিশোরকে ধাওয়া দিলে একজনকে আটক করা হয়। পরবর্তীতে আটককৃত কিশোরের জবানবন্দি নিয়ে তাকে তাঁর অভিভাবকের জিম্মায় সোপর্দ করা হয়।

আটকৃত কিশোর জিজ্ঞাসাবাদে নিজেকে শাহাবাজ মিঞা শোভনের সাবেক শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দেন এবং তাদেরকে শোভন পাঠিয়েছেন বলে পুলিশকে নিশ্চিত করেন।

এদিকে শাহাবাজ মিঞা শোভন দাবি করেন, আমাকে বিভিন্ন গ্রুপে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য আমি মিলানের বিরুদ্ধে বরিশাল কোতয়ালী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আবেদন করেছি। আমাকে উদ্দেশ্যপ্রণেদিতভাবে হেয় করা হয়েছে। আমি কোন লোকজন পাঠাইনি। আমার দায়ের করা অভিযোগের বিচারকার্য থেকে বাঁচতে তারা এই নাটক সাজিয়েছে।

অন্যদিকে তার সহপাঠী শাহরিয়ার আহমেদ মিলান উক্ত ঘটনা তুলে ধরে বৃহস্পতিবার বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সুব্রত কুমার দাস বলেন, বিষয়টি অনাকাঙ্ক্ষিত। আমি ওই বিষয় সম্পর্কে অবগত আছি এবং ভিসি মহোদয় বরাবর একটি অভিযোগ করা হয়েছে। আমরা এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।