মুলাদীর বাটামারায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৮


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ৬ এপ্রিল, ২০২১

রাসেল মল্লিক,মুলাদী প্রতিনিধি::মুলাদী উপজেলার বাটামারা ইউনিয়নের চরবাটামারা গ্রামের আনছার রাড়ী গংদের সাথে বাড়ীতে ঢোকার পথ নিয়া দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছে রবন সরদার গংদের সাথে। থানায় অভিযোগ ও হাসপাতালে ভর্তি আহত সুত্রে জানগেছে, বিষয়টি মিমাংশার জন্য রবন সরদার গংরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও স্থানীয় পুলিশ ফারিতে অভিযোগ দায়ের করলে বিষয়টি সমাধানের লক্ষে উভয় পক্ষকে শালিশ মনোনীত করে দেওয়া হয়। শালিশ গন উভয় পক্ষের কাগজ পত্র পর্যালচনা করে গত ৬এপ্রিল বিরোধীয় সম্পত্তি মাপিয়া সীমানা নির্ধারন করার দিন ধার্য করেন। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় শালিশগন উপস্থিত হইয়া বিরোধীয় সম্পত্তির সিমানা র্নিধারন করারয় সময় পুর্বপরিকল্পিতভাবে আনছার রাড়ী ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী দেশিয় অস্ত্র রামদা, লোহার রড, ডেগার, চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল নিয়া বেআইন জনতাবদ্ধে রবন সরদার, আব্দুল্লাহ, সালেহা বেগম, আইভী, খোকন সরদার, দেলায়ার ও সালাম ফকিরের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদেরকে কুটিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন এবং তাদের বসতবাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এঘটনায় আহত সিমা বেগম বাদী হয়ে আনছার রাড়ী, আনোয়ার রাড়ী, বাবুল রাড়ী, আবু রাড়ী, নেছার রাড়ী, সাইদুল রাড়ী, মারুফ রাড়ী, মাসুদ রাড়ী, মানিক রাড়ী, ইয়ামিন রাড়ী, মোফাচ্ছেল রাড়ী, রাজিব সহ অজ্ঞাতনামা ৫/৬জনকে আসামী করে মুলাদী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, সফিপুর ইউনিয়নের সাবেক এক প্রভাভশালী চেয়ারম্যান এর ছত্রছায়ায় আনছার রাড়ী গংরা এলাকায় অন্যের জমি দখল সহ সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন।