যৌতুকের জন্য স্বামীর হাতে খুন হলেন স্ত্রী


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১৬ মার্চ, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক :: মাগুরায় যৌতুকের জন্য স্বামীর হাতে খুন হলেন দুই সন্তানের জননী সুমি খাতুন (১৯)। মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সকাল ১০টায় কুশাবাড়িয়া গ্রামের একটি ধান খেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।এর আগে সোমবার (১৫ মার্চ) দিবাগত রাতে সদর উপজেলার মঘী ইউনিয়নের কুশাবাড়িয়া গ্রামে হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে। স্বামী ও তার পরিবার সুমিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাড়ির পাশের একটি ধান খেতে মরদেহ ফেলে রেখে গেছেন বলে ধারণা করেছেন নিহতের পরিবার।নিহতের চাচা ফয়সাল মাহমুদ বলেন, প্রায় তিন বছর আগে রউফ মোল্যার ছেলে আল-আমীনের (২১) সঙ্গে বশির বিশ্বাসের মেয়ে সুমির বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই সুমির স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন মোটা অঙ্কের যৌতুকের দাবি করে সুমির ওপর নির্যাতন করতেন। এ নিয়ে কয়েকবার স্থানীয়রা সালিসে বসলেও নির্যাতন বন্ধ হয়নি।নিহতের দাদা মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মঙ্গলবার সকাল ১০টায় কুশাবাড়িয়া গ্রামের একটি ধান খেতে স্থানীয়রা কাজ করতে গিয়ে মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।যৌতুকের জন্যই এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে তিনি দাবি করেন।মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জয়নুল আবেদিন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ থানায় মামলা করেননি।তবে মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।