রংপুরে রাস্তায় যুবককে পেটানোর ছবি ফেসবুকে ভাইরাল, আটক ৩


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ১২ মার্চ, ২০২১

রংপুর প্রতিনিধি:: বৃহস্পতিবার রংপুর নগরীর প্রাণকেন্দ্র প্রেস ক্লাবের সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে এক যুবকের উপর ৮/১০ জন যুবকের লাঠি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মারপিটের দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুকে) ভাইরাল হয়েছে। ছবিটি ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ ছবির আলোকে তিন জনকে আটক করেছে। রংপুর মেট্রোপলিটান পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
অনুসন্ধানে আহত যুবকের পরিচয় মিলেছে। তার নাম ফরহাদ (২৮), বাবার নাম আব্দুল আলীম, বাড়ি ঘটনাস্থলের অদূরে জাহাজ কোম্পানি এলাকায়। বর্তমানে তিনি রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৬ নম্বর মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসক ডা. শান্ত জানিয়েছেন, তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এলাকার একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ফিরছিলেন ফরহাদ। তার সঙ্গে একটি মেয়েও ছিল। পথে প্রেস ক্লাবের পাশে এক ছাপাখানার দুই কর্মচারী মেয়েটিকে উত্ত্যক্ত করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফরহাদের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এরই জের হিসেবে বৃহস্পতিবার বিকালে ফরহাদ প্রেস ক্লাব মার্কেটের কাছে আসলে ৮/১০ জন যুবক লাঠি, লোহার রড, পাইপ, ছোড়া নিয়ে অতর্কিতভাবে তার ওপর হামলা চালায় এবং এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।
পরে আহত অবস্থায় ফরহাদকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যার পর ফরহাদের ওপর হামলার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হলে নগরী জুড়ে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি মেট্রোপলিটন পুলিশের নজরে আসলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিন জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
আহত যুবক কে, কী তার পরিচয় এ সম্পর্কে প্রত্যক্ষদর্শীসহ প্রেস ক্লাব এলাকায় অবস্থিত কেউই কোনও তথ্য দিতে পারেনি। অবশেষে অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে তার পরিচয় মেলে। পরে ৬ নম্বর মেডিসিন ওয়ার্ডে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শান্ত জানান. ফরহাদের সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে ঘুমের ইনজেকশন দেওয়া হয়েছে।
কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রশিদ জানান, নগরীতে দিনের বেলায় এ ধরনেরর সন্ত্রাসী হামলার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় তিন জনকে শনাক্ত করে আটক করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঘটনার সঙ্গে কারা কারা জড়িত তাদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।