সিরিয়াস সম্পর্কের কারনেই ক্যারিয়ারে মনোযোগী হতে পারিনি: শমিতা


২৪ ঘন্টা বার্তা   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২০ আগস্ট, ২০২০

বিনোদন: বলিউডের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি। তার বোন অভিনেত্রী শমিতা শেঠি। ২০০০ সালে বলিউডে পা রাখেন তিনি। তার অভিনীত অভিষেক চলচ্চিত্র ‘মোহাব্বতে’ দারুণ সফল হয়। তারপর দুই বছরের বিরতি নিয়ে ‘সাথিয়া’ চলচ্চিত্রে বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেন। এরপর তামিল-তেলেগু ভাষার সিনেমাসহ বলিউডের কয়েকটি সিনেমায় বিশেষ চরত্রে দেখা যায় তাকে। ২০০৫ সালে ‘ফারেব’, ‘জেহের’, ‘বেওয়াফা’ সিনেমায় অভিনয় করেন শমিতা। কিন্তু কোনো সিনেমাই একক নায়িকা হিসেবে তাকে লাইমলাইটে আনতে পারেনি। তাছাড়া সিনেমায় অভিনয়ের ক্ষেত্রে অতিমাত্রায় বাছাবাছি করার স্বভাব ছিল তার। যার কারণে নতুন সিনেমার প্রস্তাব কম আসতে থাকে। একসময় সিনেমার প্রস্তাব আসা বন্ধ হয়ে যায়। অভিনয় ক্যারিয়ারের মতো শমিতার ব্যেক্তিগত জীবনেও ছিল নানা টানাপোড়েন। বলিউড অভিনেতা উদয় চোপড়ার সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। কিন্তু এ সম্পর্ক ছিল স্বল্প সময়ের জন্যে। তারপর শোনা যায়, বলিউড অভিনেতা আফতাব শিবদানির সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন তিনি। আফতাবের সঙ্গে শমিতার সম্পর্কটা বেশ এগিয়েছিল বলে শোনা যায়। এ অভিনেতার বোনের বিয়েতেও শমিতাকে দেখা যায়। বিয়েতে পরিবারের সদস্যেদের মতোই দেখা যায় তাকে। আফতাবের পরিবার থেকেও শমিতাকে আন্তরিকতার সঙ্গে গ্রহণ করেছিলেন। তবে এ সম্পর্কও সর্বশেষ টিকেনি। কী কারণে তাদের প্রেমের সম্পর্কে বিচ্ছেদ ঘটে তা আর জানা যায়নি। এরপর মনোজ বাজপেয়ীর সঙ্গে মনের লেনা-দেনা হয় শমিতার। বাড়তে থাকে ঘনিষ্ঠতা। এ নিয়ে বলিপাড়ায় বেশ কানাঘুষাও তখন শোনা যায়। কিন্তু তা গুঞ্জনেই আটকে ছিল। ৪১ বছর বয়েসি শমিতা ব্যওক্তিগত জীবনে এখনো একা। সম্পর্ক কিংবা ক্যারিয়ার কোথাও থিতু হতে পারেননি এই অভিনেত্রী। এক সাক্ষাৎকারে শমিতা বলেছিলেনÑ‘আমি সিরিয়াস সম্পর্কে ছিলাম। তাই ক্যারিয়ারে মনোযোগী হতে পারিনি।’ ক্যা রিয়ারে ব্য‘র্থ হওয়ার জন্য এটা ছিল তার প্রধান কারণ। এই উপলদ্ধির পর শমিতা আরেক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেনÑ‘অভিনয়শিল্পীদের কখনো প্রচারমাধ্যমের আলো থেকে দূরে যেতে নেই। এতে ক্যা রিয়ারে বড় ক্ষতি হয়।’